Tuesday, February 23, 2010

More Shots from Dhaka

A student of Institute of Fine Arts, painting folk patterns (Alpona) on the road to commemorate 21st February.
Celebrating Ekushey...

Boys selling bouquets at the Bangla Academy Book Fair (20th Feb Night)
The Bouquet Boys

Shaheed Minar vandalized as usual
বেলাজ বেজন্মা বাংগালী

The way we showed respect...
"Respect"? My foot!!

Shaheed Minar
Shaheed Minar

Sattar used to sell snacks in front of my university. I can't recall anything about him after 10 years. But he recognized me at the shahid minar premise yesterday..

The man who brought his bird with him
And He brought his bird...

Friday, February 19, 2010

Shots from Dhaka

Finally after long five years, I've managed to attend the Ekushey Book Fair at Bangla Academy. Feels so good!! Planning to shoot whole day on 20th and 21st.

13th was the first day of spring in Bangla Calendar. As usual the colorful spring festival took place on the grounds of Institute of Fine Arts. Here are a few shots taken that day..

The Player

The Spring Festival at Bangladesh

Welcoming Spring..

Tuesday, February 16, 2010

How to edit your Canon DSLR / Quicktime movies in Windows?

Editing Apple Quicktime Movies (Files that ends with .MOV) is a big pain in Windows. All the new Canon HD DSLR Camera record their movies in this format. So if you own one, you have no choice but using Quicktime!!

Finally, this morning, I've successfully cracked the code!!! So what's the deal? You must have three tools installed in your PC.

Here's the List

1. Quicktime 7.x Pro
2. Xilisoft MOV Converter (Option, Required for Faster Conversion to other formats)
3. Windows Movie Maker (Optional, Required for Title Animation)

Quicktime can be obtained freely. The free version is just a player. Get the serial number and convert your Quicktime to Pro edition. Now open the MOV file with Quicktime player. Use cut, copy, past, delete to merge two MOV files or delete somepart from it. Now save it as a complete MOV file (No referrence). Selection sliders are a bit tricky to find. The following pictures shows how they look in reality...

After saveing the MOV file, now determine the purpose. If you want to upload then go to the file menu and click export. For YouTube select Export "Movie to MPEG-4" and Use "Broandband - Medium".

If you want to create a movie with many clips and effects save it as AVI. AVI takes a lot of space, so must have enough sapce before proceeding.

Sometimes you need to convert the MOV files faster. In that case, use Xilisoft to get things done faster.

I prefert to convert my Canon 5D Mark II into MPEG1 (.mpg) or (.mp4). MP4 needs special software where MPEG1 can be played anytwhere.

Sunday, February 14, 2010

How to get Bangladesh "Police Clearance Certificate"

Police Clearance Certificate can be obtained easily from the one-stop service center of Dhaka Metropolitan Police HQ in Minto Road (or Bailey Road). Official SLA claims that it will be delivered on the 7th day from the date of application submission.

  • Photocopy your passport (First 6 pages plus any pages related to validity extension or correction of information)

  • Every page of the photocopied passport must be attested by a First Class Government Officer. If you live abroad, this must attested by your local Bangladesh Embassy Official.

  • Pay the service charge of Taka 500 by using "Treasury Chaalan" from Sonali Bank. Not all Sonali Banks will do this. Use this code for payment. The code must be written ! The code is 1 - 2 2 0 1 - 0 0 0 1 - 2 6 8 1

  • Write an application addressing to "The Commissioner of Dhaka Metropolitan Police".

  • You must state your cell phone number in the application.

  • You must know your Police Station (Thaana). Sometimes, even the police officers are not sure which is the right "Thaana" you belong to.

  1. Go to the DMP HQ, follow the sign for the One-Stop Service Center.
  2. Submit your application.
  3. Get the token.
  4. Someone will contact you from the Local Police Station (Thaana) and make an appointment. You must be present at home (The address you stated in your passport) that time.
  5. After physical verification, you should go back to the same place to collect the certificate. The collection date is already stated on your token.

Important Info
  • Every thing is based on the permanent address you mentioned in your passport. So if there's any issue with that, resolve it beforehand.

  • Do carry your original passport with you when you go for the first time. They, sometimes, want to see that.

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট সংগ্রহের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ এর আওতাধীন ঢাকা মহানগর এলাকার অভ্যন্তরে অবস্থানরত নাগরিকগণ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য নিম্ন লিখিত কাগজপত্রসহ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স (৩৬, শহীদ ক্যাপ্টেন মনুসর আলী স্মরণী, রমনা, ঢাকা) এর পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ওয়ান ষ্টপ সার্ভিস, রুম নং-১০৯ এ আবেদন পত্র দাখিল করতে হবে (বিকাল ৪টার পূর্বেই যেতে হবে)

  • পুলিশ কমিশনার মহোদয় বরাবর আবেদন পত্র (সাদা কাগজে)
  • পাসপোর্টের সত্যায়িত ফটোকপি (১ম শ্রেণীর সরকারী গেজেটেড কর্মকর্তা দ্বারা সত্যায়িত হতে হবে)
  • সোনালী ব্যাংকের নিউমার্কেট শাখায় কোড নম্বর - (১-২২০১-০০০১-২৬৮১) এর অনুকূলে পাঁচ শত টাকা মুল্যমানের ট্রেজারী চালানের মূলকপি
  • পাসপোর্টে উল্লেখিত স্থায়ী কিংবা অস্থায়ী ঠিকানার যে কোন একটি অবশ্যই ঢাকা মহানগর এলাকার অভ্যন্তরে হতে হবে এবং অবশ্যই ঐ ঠিকানায় বসবাস করতে হবে
  • যারা বিদেশে অবস্থান করছেন তাদের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য যে দেশে অবস্থান করছেন সে দেশে বাংলাদেশ দূতাবাস/হাইকমিশন অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত পাসপোর্টের ফটোকপিসহ তার পক্ষে আত্মীয়/অনুমোদিত ব্যক্তি আবেদন পত্র দাখিল করতে পারবেন
  • মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের (এম.আর.পি.) ক্ষেত্রে যদি পাসপোর্টে ঠিকানা উল্লেখ না থাকে তবে ঠিকানার প্রমাণ স্বরূপ জাতীয় পরিচয় পত্র/জন্ম নিবন্ধন সনদ/স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এর সনদত্রের ফটোকপি ১ম শ্রেণীর সরকারী গেজেটেড কর্মকর্তা দ্বারা সত্যায়িত করে দাখিল করতে হবে
  • শুধুমাত্র “স্পেন” সংক্রান্ত বিষয়ে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার জন্য প্রার্থীকে তার আবেদনসহ উপরে উল্লেখিত কাগজ পত্রের সাথে তিন কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি সত্যায়িত করে “সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়” বরাবর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বহিরাগমন শাখা-০৩ এ দাখিল করতে হবে
  • আবেদনপত্র জমা দেয়ার পর অত্র অফিস হতে প্রাথমিকভাবে সিরিয়াল নাম্বারসহ একটি টোকেন প্রদান করা হবে
  • টোকেনে উল্লেখিত তারিখে উক্ত টোকেন জমাদান স্বাপেক্ষে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে
  • আবেদনপত্র জমা দেয়ার সাত দিন পর অত্র অফিস হতে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে
  • বাংলাদেশে বসবাসরত/কর্মরত বিদেশী নাগরিক/বিদেশী পাসপোর্টধারী ব্যক্তিগন উপরোক্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ নিজে অথবা অনুমোদিত ব্যক্তি দ্বারা আবেদন পত্র দাখিল করে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে পারবেন
  • পাসপোর্টে উল্লেখিত ঠিকানা যদি ঢাকা মহানগরীর বাইরে হয় তবে ঠিকানাটি যে জেলার অন্তর্গত সেই জেলার বিশেষ পুলিশ সুপার বরাবর উপরে উল্লেখিত কাগজপত্রসহ আবেদনপত্র দাখিল করতে হবে। আবেদনপত্র বাংলা/ইংরেজী ভাষায় করতে হবে।
  • সকল পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট ইংরেজী ভাষায় হবে এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় হতে সত্যায়িত করে দেয়া হবে

পুলিশ কমিশনারের কাছে আবেদনের নমুনা

পুলিশ কমিশনার
ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ

বিষয়ঃ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য আবেদন


বিনীত নিবেদন এই যে, আমি নিম্নস্বাক্ষরকারী এই মর্মে আবেদন করছি যে, আমি/আমার ................................................ বিদেশ যাওয়া/স্থায়ীভাবে বসবাস করা/ ................................................ জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটের প্রয়োজন। আমার ................................ পাসপোর্ট অনুযায়ী বৃত্তান্ত নিম্নরূপঃ-
নাম .....................................................
পিতা/স্বামী .....................................................
ঠিকানা .....................................................

পাসপোর্টের নম্বর ......................... ইস্যুর তারিখ ............................

অতএব, মহোদয়ের নিকট আবেদন, আমি যাতে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে পারি তার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে মর্জি হয়।

বিনীত নিবেদক,

নাম ও স্বাক্ষর

ফোন নং-

খেয়াল রাখতে হবে যেসব বিষয়‍

  • পাসপোর্টে যে সকল পৃষ্ঠায় প্রার্থী সংক্রান্ত তথ্য রয়েছে সে সকল পৃষ্ঠা এবং যদি নবায়ন করা হয়ে থাকে তবে নবায়নের পৃষ্ঠাসহ পাসপোর্টের ফটোকপি দাখিল করতে হবে
  • মেয়াদ উত্তীর্ণ পাসপোর্ট গ্রহণযোগ্য নয়
  • কর্তৃপক্ষ প্রয়োজন মনে করলে মূল পাসপোর্ট প্রদর্শন করতে হবে
  • ব্যাংক চালানের কোড নম্বর (১-২২০১-০০০১-২৬৮১) এর ঘরে কোন প্রকার কাটাকাটি/ফ্লুইড ব্যবহার করা যাবে না এবং সঠিকভাবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষর ও সিল থাকতে হবে
  • যদি পাসপোর্টে উল্লেখিত স্থায়ী/বর্তমান ঠিকানা অথবা “থানা এলাকার” পরিবর্তন হয় হবে নিকটস্থ পাসপোর্ট কর্তৃপক্ষের নিকট হতে ঠিকানা সংশোধন করে পাসপোর্টের সত্যায়িত ফটোকপি দাখিল করতে হবে
  • প্রার্থীর দাখিলকৃত জাতীয় পরিচয় পত্র/জন্ম নিবন্ধন সনদ/স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর এর সনদপত্রে উল্লেখিত ঠিকানার সাথে প্রার্থীর বর্তমান বসবাসের ঠিকানার মিল থাকতে হবে
  • হেল্প লাইনঃ- ০১১৯১০০৬৬৪৪, ০২-৭১২৪০০০, ৯৯৯-২৬৩৫

Wednesday, February 10, 2010

আলোর রাজা জো ম্যাকনেলি

The God of Light
জো ম্যাকনেলির কথা আমি প্রথম জানতে পারি আমার বন্ধু রিপির কল্যাণে। রিপি একদিন এসে বায়না ধরলো তাকে The Hotshoe Diaries এর পিডিএফ কপি জোগাড় করে দিতে হবে। খুঁজে পেয়ে তাকে দিলাম আর একটা কপি রেখে দিলাম নিজের জন্য। পড়তে গিয়ে মজা লাগলো। পুরো বইটাই আলোকচিত্রে ফ্ল্যাশের ব্যবহার নিয়ে। ফ্ল্যাশ একটা কঠিন বস্তু, একে ঠিকমতো ব্যবহার করতে পারার জন্য যথেষ্ট দক্ষতা প্রয়োজন। ম্যাকনেলি এক্ষেত্রে ভীষণ ক্রিয়েটিভ, এজন্য কেউ কেউ তাকে গড অফ লাইট বলেও ডাকে। যাই হোক, এরপর ম্যাকনেলিকে ভুলে গেলাম।

সেদিন PSPJর ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখি ফেব্রুয়ারির সাত তারিখ ভদ্রলোক নিকন সেন্টার বক্তৃতা দিতে আসবেন। নাম লেখাতে গেলাম, জানানো হল আসন পূর্ণ, দাড়িয়ে দেখতে চাইলে পারা যাবে। সাত তারিখে আগে যাওয়ার বদৌলতে বসেই আলোচনা শোনার সুযোগ হল। ভদ্রলোক ভালো বক্তা, চমৎকার বলে গেলেন নানা বিষয়ে।

নীচের ভিডিওটার সাথে নিকন সেন্টারে করা ম্যাকনেলির আলোচনা প্রায় একই রকম বলে উৎসাহী পাঠক দেখে ফেলতে পারেন..

ম্যাকনেলির নাম কিংবা কাজ স্টিভ ম্যাককারীর মতো না হলেও তিনি ১৯৮৭ থেকে ন্যাটজিওর হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। লাইফ ম্যাগাজিনের স্টাফ ফোটোগ্রাফার ছিলেন এক সময়। ম্যাগাজিন ফোটোগ্রাফির জন্য ভূষিত হয়েছেন আলফ্রেড আইজেনস্টাড পুরস্কারে, জিতেছেন ওয়ার্ল্ড প্রেস ফোটো প্রাইজ।

ম্যাককারি দেখে বুঝেছি ক্লাসিক ফোটোগ্রাফাররা কেমন। স্টিভের ছবিতে কৃত্রিম আলো ও আয়োজন একেবারেই নেই। অন্যদিকে ম্যাকনেলি পুরোদস্তুর কর্মাশিয়াল। ট্রিকারী, ফ্ল্যাশ, গিমিক এসব দিয়ে সে তার শিল্প সৃষ্টি করে। দুজনে দুই মেরুর, কিন্তু দুজনের কাজই অনবদ্য।

যারা গিয়ার নিয়ে আগ্রহী তাদের বলি, ম্যাককারি ও ম্যাকনেলি দুজনই নিকনের ভক্ত, ব্যবহার করেন D3/D3x সিরিজের ক্যামেরা।

বন্ধুসুত্রে জানা গেল জো ম্যাকনেলি আগের দিন একটা ওয়ার্কশপ করেছেন, যেখানে জন প্রতি ৪০০ রিংগিত প্রবেশমূল্য দিতে হয়েছে। আমার এসবে বড্ড আগ্রহ, কিন্তু এই দুর্দিনে এতো টাকা কিভাবে খরচ করি!!

পুনশ্চঃ এই নিয়ে উইকিপিডিয়াতে বিশ্বসেরা দুইজন ফোটোগ্রাফারের আমার তোলা ছবি আপলোড করলাম!!

Sunday, February 7, 2010

ছবি প্রিন্ট করার সুলভ উপায়!

এখনকার ইন্কজেট প্রিন্টারের কার্ট্রিজগুলো স্মার্ট, গায়ে ইলেকট্রনিক চিপ লাগানো থাকে, ফলে না যায় নকল করা, না যায় রিফিল করা (কালি শেষ হয়ে গেলে চিপ সেটা স্মৃতিতে রেখে দেয়, ফলে কালি ভরলেও লাভ হয় না!!)। যেহেতু প্রচুর ছবি তুলি তাই প্রিন্ট করার খায়েস হয় প্রায়ই। দোকানের মিনিল্যাবে ছবি প্রিন্ট করলে ছবি টেকে বহুদিন কিন্তু তাতে খরচ ভালো। আবার প্রিন্টারে যে প্রিন্ট করবো তারও উপায় নেই! দুপাতা ছবি প্রিন্ট করলেই কালি শেষ দেখায়!! আর একেকটা কার্ট্রিজ (চারটা লাগে সবমিলিয়ে) এর দাম দেশী টাকায় পাঁচশোর মতো!

সেদিন প্রিন্ট করতে গিয়ে মেজাজ চড়ে গেল। কালি শেষ, বাবাকে ছবিগুলো দেওয়া গেল না। রাগের মাথায় গেলাম লাওইয়াত প্লাজায়। সেখানে নকল চিপ লাগানো কিছু কার্ট্রিজ দেখেছিলাম বহুআগে, ভরসা হয়নি বলে আর কিনিনি। এবার গিয়ে কিনে ফেললাম, তিন হাজার টাকায় পাঁচ বোতল কালি আর চারটা রিফিলেবল কার্ট্রিজ। নকল চিপ থাকায় প্রিন্টার মনে করে এগুলোই আসল মাল, তাই ভ্যাজাল না করে প্রিন্ট করে যায়। মুস্কিল হল প্রথম রাতে কিছুতেই কার্ট্রিজগুলোকে আসল বলে ভুজং দেওয়া গেল না, প্রিন্টার ঠিকই ধরে ফেলে। দোকানকিকে বলায় সে জানালো ঠিকমতো লাগাতে, ক্লিক করে আওয়াজ হয় কি না শুনতে। তার কথামতো আওয়াজ করে লাগাবার পরে দেখি কঠিন অবস্থা! জিনিস কাজ করছে। আনন্দ ঠিকল না বেশীক্ষন। অনেক দিন ব্যবহৃত না হওয়ায় প্রিন্টার হেডের অবস্থা করুন। প্রায় দুজন ছবি প্রিন্ট করার পরে হেড ঠিকঠাক কাজ করতে আরম্ভ করলো। কোয়ালিটি দেখে আমিও মুগ্ধ!! মিতসুবিশির গ্লসি পেপার কিনেছিলাম, মনে সুখে ডজন খানেক ফোটো এফোর সাইজে প্রিন্ট করে ফেললাম!!!

বাজারে এই জিনিসকে Auto Reset Chip (ARC) Refillable Cartridge নামে ডাকা হয়। এর সুবিধা হল এরা সাধারন কার্ট্রিজ এর মতোই, শুধু বারে বারে রিফিল করতে হয়। যারা রিফিল করতে নারাজ তারা CISS (Continuous Ink Supply System) ব্যবহার করতে পারেন, তবে এটাতে বহু পাইপ-টাইপ লাগাতে হয় বলে কিঞ্চিত যন্ত্রনা হয়!

ছবিঃ CISS (Continuous Ink Supply System)

Wednesday, February 3, 2010

ক্যামেরাভাঙ্গা দিন..

জানুয়ারির ৩১ তারিখ ব্যাগ থেকে আমার ফাইভডিমার্কটুটা পড়ে গেল, পড়ে গেল একদম, ভাঙ্গা পাথর ছড়ানো বোহ্ টি গার্ডেনের পার্কিং-এ। ম্যাগনিশিয়াম বডি আর এল লেন্স যথেষ্ট শক্তপোক্ত হলেও এলসিডি স্ক্রিনটা নয়। না, ছবি দেখার স্ক্রিনটা না, সেটিং দেখার জন্য দেওয়া সাদাকালো ছোট প্যানেলটা গেছে, ফেটেফুটে একেবারে চৌচির। বাকহারা হয়ে গেলাম। বাড়ি ফিরে জানা গেল এসব ঠিক করা যায়। ক্যাননে দিয়ে এসেছি। তারা কাল জানাবে কী হাল। ভালোই খসে যাবে এই দুর্দিনে!!! তার উপরে তিন সপ্তাহ ক্যামেরা ছাড়া থাকতে হবে... আর ভালো লাগে না..